মাসআলাহ্ঃ নামাযে ভুলবশতঃ কোন ওয়াজিব ছুটিয়া গেলে নামায শেষে সাজদায়ে সাহু করিলে নামায হইয়া যায়। তবে ইচ্ছাকৃত ওয়াজিব তরক করিলে নামায পুনরায় পড়িতে হয়। 

১। আলহামদু শরীফ পুরা পড়া।

২। আলহামদুর সঙ্গে সূরা মিলান।

৩। রুকু সেজদায় দেরী করা।

৪। রুকু হইতে সােজা হইয়া খাড়া হইয়া দেরী করা।

৫। দুই সেজদার মাঝখানে সােজা হইয়া বসিয়া দেরী করা।

৬। দরমিয়ানী বৈঠক।

৭। দোন বৈঠকে আত্তাহিয়্যাতু পড়া।

৮। ইমামের জন্য কেরাত আস্তে এবং জোরে পড়া।

৯। বিতরের নামাযে দু’আয়ে কুনূত পড়া।

১০। দোন ঈদের নামাযে ছয় ছয় তাকবীর বলা।

১১। প্রত্যেক ফরয নামাযের প্রথম দুই রাকাতকে কেরাতের জন্য নির্ধারিত করা।  

১২। প্রত্যেক রাকাতের ফরযগুলির তারতীব ঠিক রাখা।

১৩। প্রত্যেক রাকাতের ওয়াজিবগুলির তারতীব ঠিক রাখা।

১৪। আসসালামু আলাইকুম বলিয়া নামায শেষ করা।